Menu

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের এক কর্মকর্তার অবৈধ দখলে থাকা একটি প্রাডো উদ্ধার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) । আজ সোমবার গাড়িটি উদ্ধার করা হয় বলে দুদক জানিয়েছে।

দুদক জানায়, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহবুবুল হক ‘হাঁস প্রজনন প্রকল্প’ নামের একটি প্রকল্পের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৮ সালের জুনে প্রকল্পটি শেষ হলেও অধিদপ্তরের একটি সাদা রঙের প্রাডো (ঢাকা মেট্রো ঘ-১১-৩৫৫৮) গাড়িটি নিজের দখলে রেখে ব্যবহার করছিলেন। এ অভিযোগ পেয়ে দুদকের এনফোর্সমেন্ট দলের সদস্য ও মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী গাড়িটি ফেরতের নির্দেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ সোমবার দুপুরে প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর গাড়িটি দুদকে উপস্থাপন করে।

দুদকের কাছে ওই গাড়িচালকের উপস্থাপিত তথ্যে জানা যায়, ২০১৮ সালের জুনে প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হলেও গত আট মাস যাবৎ মাহবুবুল হক অবৈধভাবে গাড়িটি ব্যবহার করে আসছিলেন। গাড়িচালকের বেতন ও ওভারটাইম বাবদ মাসে প্রায় ৫০ হাজার টাকা হয়েছে।

দুদক জানিয়েছে, প্রাথমিক তথ্য সংগ্রহের পর গাড়িটি অধিদপ্তর কর্তৃপক্ষের কাছে ফেরত দেওয়া হয়। এ প্রসঙ্গে দুদক মহাপরিচালক মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সম্পদের অবৈধ ব্যবহার ক্ষমতার অপব্যবহারের শামিল, যা প্রাতিষ্ঠানিক সুশাসনের পরিপন্থী।’

গত ১১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর মতিঝিল এলাকা থেকে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) সিবিএর সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন মিয়ার দখলে থাকা একটি পাজেরো গাড়ি উদ্ধার করে দুদক। পরদিনই একই সংস্থার সিবিএ সভাপতির দখল থেকে আরেকটি পাজেরো উদ্ধার করা হয়।

দুদকের এ অভিযানের পরিপ্রেক্ষিত সম্প্রতি অগ্রণী ব্যাংকের সিবিএ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাঁদের দখলে থাকা দুটি পাজেরো গাড়ি ফেরত দেন।