Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ দেশে ভূমিকম্পন প্রবণতা বেড়েছে। নেচার জিওসায়েন্স জার্নালের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে বড় ধরনের ভূমিকম্পের ঝুঁকি তৈরি হচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বড় ধরনের ভূমিকম্পের আগে বা পরে ছোট ছোট ভূকম্পন অনুভূত হয়। যা এখন বাংলাদেশের জন্য চিন্তার কারণ।

ভূমিকম্পের অন্যতম প্রধান কারণ হলো- ভূত্বকীয় পাত বা টেকটনিক প্লেট। এরকম ৩টি প্লেটের সংযোগস্থলে অবস্থান করছে বাংলাদেশে। এগুলোর মধ্যে ইন্ডিয়ান ও বার্মিজ প্লেটের মাঝখানে অবস্থান করছে সিলেট। সিলেটের উত্তরে রয়েছে ডাউকি ফল্ট। টেকটনিক প্লেটগুলোতে প্রচুর পরিমাণে শক্তি জমা হচ্ছে এবং এই জমে থাকা শক্তিই ভূমিকম্পের মাধ্যমে বের হয়ে আসে।সম্প্রতি সিলেটে উল্লেখযোগ্যহারে মৃদু ভূকম্পন অনুভূত হয়েছে। বাংলাদেশে ভূমিকম্পপ্রবণ এলাকার মানচিত্র অনুযায়ী, সিলেট ও চট্টগ্রাম উচ্চ ঝুঁকিপ্রবণ অঞ্চল।

যুক্তরাষ্ট্র, বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের গবেষকরা বলছেন, সিলেট, রাঙামাটি, বান্দরবান, কক্সবাজার, ঢাকা ও চট্টগ্রাম জেলা মাঝারি ঝুঁকিপূর্ণ এবং পশ্চিম ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল সর্বাপেক্ষা কম ঝুঁকিপূর্ণ। ডাউকি ফল্ট বা সিলেট থেকে চট্টগ্রামের পাহাড়ি অঞ্চল গত ৫০০ থেকে এক হাজার বছরে বড় ধরনের কোনো ভূমিকম্প হয়নি। যার ফলে সাম্প্রতিক ভূমিকম্পগুলো বড় ধরনের ভূমিকম্পের পূর্বাভাস দিচ্ছে।গত ২৯ মে ৭ বার এবং ৩০ মে একবার সিলেটে ভূমিকম্প অনুভূত হয়। সোমবার (৭ জুন) দেড় মিনিটের মধ্যে দুই দফা ভূমিকম্প হয়েছিল।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ০৯  জুন ২০২১ /এমএম