Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ ব্যবসায়ী স্বামী নিখিল জৈনের থেকে আলাদা থাকছেন সাংসদ-অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। তিনি অভিনেতা যশ দাশগুপ্তের সঙ্গে প্রেম করছেন, একই ফ্ল্যাটে থাকছেন, আবার যশের সন্তানের মাও হতে চলেছেন। এসব খবরে এখন উত্তাল টলিউডপাড়া। রসালো এই খবরের মাঝে হারিয়ে গিয়েছিল আরেক জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়ের দাম্পত্য কলহের খবর। কিন্তু তার তৃতীয় স্বামী রোশন সিংয়ের কল্যাণে আবারও আলোচনায় শ্রাবন্তী।

নিখিল-নুসরাতের মতো শ্রাবন্তী এবং রোশনও কয়েক মাস ধরে আলাদা রয়েছেন। শুরুর দিকে একে-অন্যকে তারা বিঁধেছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন পোস্টের মাধ্যমে। পরবর্তীতে শ্রাবন্তী বিধানসভা নির্বাচনের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়লে ভাটা পড়ে তাদের সেই ঠান্ডা যুদ্ধে। নতুন খবর, স্ত্রী শ্রাবন্তীকে আবার নিজের সংসারে ফেরত চাইছেন রোশন সিং। তিনি বিবাহ বিচ্ছেদ চাইছেন না। এ জন্য সোমবার তিনি আদালতে আবেদনও করেছেন।

রোশন সিংয়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে আগামী জুলাইতে অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়কে তলব করেছে আদালত। তখনই বোঝা যাবে, তিনি ফের রোশনের সংসারে ফিরে যাবেন কি না। এই দম্পতি শুধু একে-অপরের থেকে আলাদাই থাকেন। তাদের আইনি বিচ্ছেদ হয়নি। তাই দুজন চাইলেই আবার এক ছাদের নিচে আসতে পারেন। তাতে রোশন তো রাজি, বাকিটা নির্ভর করছে শ্রাবন্তীর সিদ্ধান্তের ওপর।

এদিকে, টলিউডের বাতাসে শ্রাবন্তীর নয়া প্রেমের গুঞ্জন। শোনা যাচ্ছে, এবার এক ব্যবসায়ীর প্রেমে পড়েছেন নায়িকা। তাকে নিয়ে নাকি সম্প্রতি পাহাড়ে ঘুরতেও গিয়েছিলেন। কিন্তু তাদের এখনো এক ফ্রেমে বন্দি করতে পারেননি ফটোসাংবাদিকরা। এছাড়া ওই ব্যবসায়ীর নাম পরিচয়ও জানা যায়নি। তবে খবর যদি সত্যি হয়, তবে রোশনের সংসারে ফিরতে দুবার ভাবতে হবে শ্রাবন্তীকে। হয়তো নয়া প্রেমের টানে ফিরবেনই না।

২০১৯ সালের ১৭ এপ্রিল একটি বেসরকারি বিমান সংস্থার কেবিন ক্রু সুপারভাইজার ও একটি জিম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মালিক রোশন সিংকে বিয়ে করেন শ্রাবন্তী। নায়িকার ভগ্নিপতির মাধ্যমে পরিচয় হয় তাদের। কিছুদিন ডেট করার পর তারা বিয়ের সিদ্ধান্ত নেন। শুরুর দিকে দুজনের সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট দেখে মনে হচ্ছিল, ভালোই কাটছে তাদের দাম্পত্য। কিন্তু এক বছর পরই ওলটপালট হয়ে যায় সবকিছু। গত বছরের মাঝামাঝি তারা আলাদা হয়ে যান।

এটি শ্রাবন্তীর তৃতীয় বিয়ে। অভিনেত্রীর প্রথম বিয়েটা হয়েছিল ২০০৩ সালে চলচ্চিত্র নির্মাতা রাজিব বিশ্বাসের সঙ্গে। সেই সংসারে জন্ম হয় ছেলে ঝিনুকের। কিন্তু রাজের সঙ্গে থাকতে পারেননি শ্রাবন্তী। আট বছর সংসার করার পর ২০১১ সালে তাদের বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়। ডিভোর্সের কারণ হিসেবে সে সময় রাজের বিরুদ্ধে একাধিক নারীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ এনেছিলেন শ্রাবন্তী। পাল্টা একই অভিযোগ তুলেছিলেন রাজিবও।

প্রথম সংসার ভাঙার চার বছর পর ২০১৫ সালে একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থায় একসঙ্গে কাজ করতে গিয়ে মডেল কৃষেণ ব্রজের সঙ্গে সম্পর্ক হয় শ্রাবন্তীর। দুই বছর প্রেম করার পর ২০১৭ সালের জুলাইয়ে তারা বিয়ে করেন। কিন্তু নায়িকার সেই সংসার টিকেছিল মাত্র তিন মাস। দীর্ঘদিন আলাদা থাকার পর শ্রাবন্তী-কৃষেণের পাকাপাকি ডিভোর্স হয় ২০১৯ সালের ১৫ জানুয়ারি।

সেই ডিভোর্সের মাস না গড়াতেই পরিচয় হয় রোশন-শ্রাবন্তীর। কিছুদিন হাই হ্যালোর পর তারা একসঙ্গে নৈশভোজে যেতে শুরু করেন। রোশনের বাড়িতেও শ্রাবন্তীর যাতায়াত বাড়তে থাকে। ছড়িয়ে পড়ে তাদের বিয়ের গুঞ্জন। সেই গুঞ্জনকে সত্যি করে অবশেষে ২০১৯ সালের ১৭ এপ্রিল রোশনের সংসারে এন্ট্রি নেন নায়িকা। এ সংসারও ভাঙনের মুখে। সেই ভাঙন থেকে সংসার বাঁচাতে শ্রাবন্তীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রোশন। কী হবে, তা সময়ই বলবে।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ০৮ জুন ২০২১ /এমএম