Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌  গ্যাস্ট্রিকের ব্যথা উঠলেই অনেকে একটা ওষুধ খেয়ে নেন। এতে ব্যথা কমলেও অন্য ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ পাকস্থলীর পিএইচ বাড়িয়ে রাখে, যার ফলে এই ভিটামিন বি১২ পাকস্থলীতে শোষণ হতে পারে না। যাঁরা প্রায়ই গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ খান তাঁদের উচিত নিয়মিত ভিটামিন বি১২ সাপ্লিমেন্ট খাওয়া।এ ছাড়া অন্যান্য রোগের কারণেও ভিটামিন বি১২-এর স্বল্পতা দেখা দিতে পারে। এর অভাবে আমাদের শরীরে রক্তশূন্যতা দেখা দেয়।
লক্ষণ

♦ দুর্বলতা, অবসাদ, মাথা ধরা

♦ বুক ধড়ফড় করা, শ্বাসকষ্ট

♦ চামড়া ফ্যাকাসে হয়ে যাওয়া

♦ জিহ্বা অতিরিক্ত মশৃণ হয়ে যাওয়া

♦ ক্ষুধামন্দা

♦ খাবারে অরুচি

♦ পেটে গ্যাস হওয়া

♦ মল বেশি শক্ত বা পাতলা হওয়া

♦ স্নায়ু বা নার্ভের সমস্যা

♦ হাত-পায়ে দুর্বল লাগা

♦ অবশভাব

♦ চিলিক দেওয়া

♦ হাঁটা-চলায় সমস্যা

♦ দৃষ্টিশক্তি কমে যাওয়া

♦ মানসিক স্বাস্থ্যের অবনতি

♦ ডিপ্রেশন

♦ স্মরণশক্তি কমে যাওয়া

♦ খিটখিটে মেজাজ

♦ পরিবারের বয়স্ক সদস্য, গর্ভবতী ও প্রসূতির জন্য ভিটামিন বি১২ জরুরি

করণীয়

লক্ষণগুলো দেখা দিলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। চিকিৎসক রক্ত পরীক্ষা করতে দিতে পারেন।

মানব শরীর নিজে থেকে ভিটামিন বি১২ তৈরি করে না। দুধ, পনির, ডিম, মাংস, সামুদ্রিক মাছে ভিটামিন বি১২ পাওয়া যায়। শরীর বেশিদিন এই ভিটামিন সংরক্ষণ করতে পারে না, তাই সেসব খেতে হবে ঘন ঘন। উদ্ভিজ্জ খাবারে ভিটামিন১২ কম থাকে। তাই নিরামিষাশীদের শরীরে ভিটামিন বি১২-এর স্বল্পতা বেশি দেখা দেয়। মদ্যপানেও ভিটামিন বি১২-এর ঘাটতির ঝুঁকি বাড়ে।

পরামর্শ দিয়েছেন

ডা. আলমগীর মো. সোয়েব

কনসালট্যান্ট (ইএনটি)

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ২৯ জুন  ২০২২ /এমএম