Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ বিপুল উত্সাহ-উদ্দীপনায় বাংলা নববর্ষ ২০২৯, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৬১তম এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২৩তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন করেছে নিউইয়র্কের বাংলাদেশ কনস্যুলেট। এ উপলক্ষে স্থানীয় সময় শুক্রবার নিউইয়র্ক কনস্যুলেট মিলনায়তনে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও স্থায়ী প্রতিনিধি রাবাব ফাতেমা, ইতালিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. শামীম আহসান, নিউইয়র্ক স্টেট সিনেটর জন ল্যু, নিউইয়র্কে বিভিন্ন দেশের কনসাল জেনারেল ও কূটনীতিক, মুক্তিযোদ্ধাসহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক, নেতৃবৃন্দ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। দিবসটি উপলক্ষে কনস্যুলেটকে দেশীয় ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির আলোকে সাজানো হয়।

নিউইয়র্কে ১২তম এনআরবি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠাননিউইয়র্কে ১২তম এনআরবি অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কনসাল জেনারেল ড. মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান এবং পয়লা বৈশাখকে বাঙালির প্রাণের উৎসব বলে অভিহিত করেন। তিনি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও কাজী নজরুল ইসলামকে বাংলাদেশ তথা বিশ্ব সাহিত্যের অমূল্য সম্পদ বলে উল্লেখ করে বলেন, বাংলা ভাষা, সাহিত্য ও সংস্কৃতির উন্নয়ন ও বিকাশে তাঁদের অবদান চিরস্মরণীয়।

তিনি পয়লা বৈশাখের অন্তর্নিহিত তাৎপর্য এবং রবীন্দ্র-নজরুলের চিন্তা চেতনা ও দর্শন বিশ্ব শান্তি, সাম্য-ঐক্য প্রতিষ্ঠায় বর্তমান বিশ্ব বাস্তবতায় অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক ও কার্যকরী বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।নিউইয়র্কে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ৫ জুননিউইয়র্কে জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচন ৫ জুন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশাত্মবোধক গান, রবীন্দ্র সংগীত, নজরুল গীতি, গ্রাম-বাংলার লোকজ গান ও নৃত্য পরিবেশনের মাধ্যমে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মঞ্চস্থ হয়। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের খ্যাতনামা শিল্পী একুশে পদকপ্রাপ্ত রবীন্দ্রনাথ রায় ও শহীদ হাসান-এর দরদী কণ্ঠের পরিবেশনায় কনস্যুলেটে এক মনোরম আবহ তৈরি হয়।নিউইয়র্কস্থ সাংস্কৃতিক সংগঠন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পারফরমিং আর্টস (বিপা) এবং অনুপ কুমার ড্যান্স একাডেমির শিল্পী ও শিক্ষার্থী ছন্দেপূর্ণ সৃজনশীল নৃত্য ও সঙ্গীতের মাধ্যমে উপস্থিত অতিথিদের মুগ্ধ করে।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ০৪ জুন  ২০২২ /এমএম


এই বিভাগের আরও সংবাদ