Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ পেটের চর্বি মূলত ভিসেরাল ফ্যাট। পেটের মেদ বা বেলি ফ্যাট ত্বকের নিচে ও পাশাপাশি যকৃৎ, কিডনি ও অন্যান্য অভ্যন্তরীণ অঙ্গের গায়ে লেগে থাকে বলে বিপাকক্রিয়ায় নানা জটিলতা, রক্তনালিতে ও যকৃতে চর্বি জমা হওয়া, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, কোলন ক্যানসার ইত্যাদি হতে পারে।

বেলি ফ্যাট বা পেটের চর্বি বা ভুঁড়ি কমানোর জন্য খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনার পাশাপাশি ব্যায়ামও করতে হবে। অ্যারোবিক ব্যায়াম, যেমন জগিং, ট্রেডমিল, সাইকেল চালানো ইত্যাদি দেহের অন্যান্য অংশের মেদের সঙ্গে পেটের মেদও কমায়। প্রতিদিন জগিং করলে বা জোরে হাঁটলে বেলি ফ্যাট একটু একটু কমতে থাকে। পাশাপাশি খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনতে গেলে প্রথমেই জেনে নিতে হবে কী খাবেন না আর কী খাবেন না।

বেলি ফ্যাট বা পেটের চর্বি বা ভুঁড়ি কমানোর জন্য খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনার পাশাপাশি ব্যায়ামও করতে হবে
মিষ্টি ও মিষ্টিজাতীয় খাবার: মিষ্টি জাতীয় খাবার ও পানীয় একেবারেই শরীরের জন্য ভালো নয়। দিনের পর দিন এ ধরনের খাবার গ্রহণ করলে ওজন বাড়ার তীব্র সম্ভাবনা থাকে। তাই নিজের ডায়েট থেকে মিষ্টিজাতীয় খাবার ও পানীয় কমিয়ে দিন। তবে তাই বলে মৌসুমী মিষ্টিজাতীয় ফল একেবারেই খাওয়া ছেড়ে দিবেন না।

উচ্চ শর্করাযুক্ত খাবার: কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার কিন্তু শরীরের জন্য অল্প করে হলেও প্রয়োজন আছে। তবে বেশি খাবেন না। কার্বোহাইড্রেট খাওয়ার মাত্রা যত কমে যাবে ততই খিদের মাত্রাও কমে যাবে। তাই ওজন বাড়ার তোমন একটা সম্ভাবনা থাকে না। এর ফলে ডায়াবেটিস হওয়ার সম্ভাবনাও কমে যায়।

আঁশযুক্ত খাবার: খাবার খেলেই হল না, সেটিকে হজমও করতে হবে। প্রচুর পরিমাণে ফাইবার খেলে শরীরে পুষ্টিতন্তুগুলো ভালোভাবে কাজ করবে। সবুজ শাকসবজি, তাজা ফলমূল খেতে হবে বেশি করে।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ১০ মে  ২০২২ /এমএম