Menu

বাল্যস্মৃতি
কিরণ বণিক শংকর

আমার শৈশব ও কৈশোরের ফেলে আসা সকল স্মৃতি,
জীবন খাতার শেষ পাতায় এখনও টানছে না ইতি।
ঝোপে-ঝাড়ে, গাছের ডালে কাটিয়েছি কত বেলা,
মেতে থাকতাম নিয়ে কত শত খেলা।
যখন তখন দিয়েছি ঝাপ, কেটেছি সাঁতার দিঘী কিংবা পুকুরে,
কাটিয়েছি সবাই মিলে সকাল-সন্ধ্যা কত রোদ ফাটা দুপুরে।
গ্রামের মক্তব টি ছিল দিঘীর পাড়ের ছোট্ট মাটির ঘরে,
মিষ্টির আশায় দাডাতাম গিয়ে প্রতি জুম্মার পরে।
স্কুলের সরস্বতী পূজা কিংবা মিলাদ মাহফিলে,
অংশ গ্রহন ছিল সকল ধর্মের ছাত্র ছাত্রী মিলে।
ছিল না সেদিন ভিডিও গেম, আই পড , টেবলেট বা ইন্টারনেটের ছড়াছড়ি,
ছিল তবে লাটিম, কুতকুত,গোল্লাছুট, কানামাছি ও লুকোচুরি,
আরও ছিল মার্বেল, ডিগবাজি,দাড়িয়াবান্দা গুটিখেলা আর ঘুড়ি।
শঙ্খ বা আযানের ধ্বনি শুনে নাহি হতাম মোরা বিরক্ত,
এসব শুনেই তো বেড়ে উঠেছি আর তাতেই মোরা অভ্যস্ত।
ফুলের পাপড়ির মত ঝড়ে যাওয়া সেইসব দিনের কথা,
আজও মনে পড়লে বুকে লাগে কেমন যেন ব্যাথা।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১/এমএম