Menu

আহসান রাজীব বুলবুল, প্রধান সম্পাদক, প্রবাস বাংলা ভয়েস  :: কানাডায় জনস্বাস্থ্য সংস্থা (পিএইচএসি)কর্তৃক নতুন জাতীয় মডেলিংএ কোভিড-১৯ এর নতুন ধরণ (ভেরিএন্ট) যেভাবে উদ্বেগজনকভাবে কানাডা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ছে, এতে করে কানাডার জনস্বাস্থ্য ব্যবস্থার বর্তমান স্তরের বিধিনিষেধ দেশব্যাপী ভাইরাসের পুনরুত্থান রোধ করতে যথেষ্ট হবে না।

শুক্রবার কানাডার জনস্বাস্থ্য সংস্থা (পিএইচএসি)কর্তৃক মহামারীটির নতুন অনুমানের অংশ হিসাবে এই ভয়ঙ্কর সতর্কবানীটি এসেছে। বলা হয়েছে সতর্ক না হলে প্রতিদিন বিশ হাজার মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হতে পারে ।

কানাডার প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডঃ থেরেসা ট্যাম এবং কানাডার উপ-প্রধান জনস্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ হাওয়ার্ড এনজু নতুন জাতীয় মডেলিং উপস্থাপন করে উল্লেখ করেন যে, কানাডা মহামারীটি নিয়ন্ত্রণ রাখতে চাইলেও এখন সমস্ত প্রদেশেই কোভিড-১৯এর নতুন ধরণ পাওয়া গেছে, সেজন্য আরও কঠোর জনস্বাস্থ্য বিধিনিষেধ এবং জনগণকে আরও সতর্ক থাকাটা প্রয়োজন।

বর্তমান অনুমানের ভিত্তিতে, বর্তমান মহামারী নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্হাসমূহ সম্পূর্ণরূপে মহামারীর নতুন ধরণ নিয়ন্ত্রণ করতে যথেষ্ট নাও হতে পারে। সমস্ত প্রদেশে মার্চ এবং এপ্রিল মাসে একটি অতি “শক্তিশালী পুনরুত্থান” হওয়ার পূর্বাভাস অনুমান করা যাচ্ছে । যদি জনগণ তাদের সতর্কতা কমিয়ে দেয় এবং যদি জনস্বাস্থ্যের বিধিনিষেধগুলো তুলে নেওয়া হয়, তবে প্রথম বা দ্বিতীয় তরঙ্গে যেটি দেখা গিয়েছিল সেভাবে অতীতের পর্যায়ে সংক্রমণের সংখ্যা দ্রূত বেড়ে যাওয়ারও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়।

এর ফলে বসন্তের মধ্যে ২০ হাজার পর্যন্ত পর্যন্ত নতুন দৈনিক সংক্রমণ হতে পারে। বর্তমানে সারাদেশে প্রতিদিনের দৈনিক শনাক্তের সংখ্যা প্রায় ২,৯০০, এতে গত মাসের তুলনায় পরিস্হিতি অনেকটা উন্নতি হয়েছে,যদিও কিছু প্রদেশে একদিনে অনেক নতুন সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে। এই ভেরিয়েন্টগুলির নতুন ধরণের প্রাদুর্ভাবগুলি কীভাবে দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে তার উদাহরণ হিসাবে তিনি নিউফাউন্ডল্যান্ড এবং ল্যাব্রাডরের ক্ষেত্রে সাম্প্রতিক নূতন ধরণের সংক্রমণ দ্রূত বেড়ে যাওয়ার উদাহরণ উল্লেখ করেন।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, কানাডায় করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৮ লাখ ৪৯ হাজার ৫ শত ১৭ জন, মৃত্যুবরণ করেছেন ২১ হাজার ৭শ’ ২৩ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৯৬ হাজার ৬ শ’ ৩০ জন।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ /এমএম


এই বিভাগের আরও সংবাদ