Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ ঘরে ঘরে এখন চলছে ঈদের আমেজ। সেই সঙ্গে গরুর গোশতের ঘ্রাণ।ঈদের উৎসবে অন্যতম সঙ্গী নানা স্বাদের রান্না। ঈদ চলে গেলেও কোরবানির গরুর গোশতের নানান রান্না চলছেই। তেমনি আপনার রসনা বিলাস মেটাতে পারে ‘ছেঁচা মাংস’। জেনে নিন এর রেসিপি।

উপকরণ প্রথম ধাপের জন্য :১. গরুর রানের মাংস ৪ কেজি (হাড়-চর্বি ছাড়া),২. পেঁয়াজবাটা ৪ টেবিল চামচ,৩. আদাবাটা ৪ চা-চামচ,৪. রসুনবাটা ৪ চা-চামচ,৫. হলুদ গুঁড়া ৪ চা-চামচ,৬. মরিচ গুঁড়া ৪ চা-চামচ,৭. ধনিয়া গুঁড়া ৪ চা-চামচ,৮. তেজপাতা ৪টি,৯. লবঙ্গ, এলাচি, দারুচিনি ৪টি করে, ১০. সয়াবিন তেল ১ কাপ,১১. লবণ পরিমাণমতো,১২. পানি পরিমাণমতো,১৩. গরুর চর্বি ১ কেজি।

দ্বিতীয় ধাপের জন্য :১. পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ,২. কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ,৩. ধনিয়াপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ,৪. টালা জিরা গুঁড়া ২ টেবিল চামচ,৫. টালা ধনিয়া গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, ৬. গরমমসলা গুঁড়া ১ চা-চামচ,৭. টালা রাঁধুনী গুঁড়া আধা চা-চামচ,৮. টালা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ,৯. সরিষার তেল ২ টেবিল চামচ,১০. লেবুর রস স্বাদমতো,১১. লবণ স্বাদমতো,১২. টমেটো কুচি আধা কাপ,১৩. কাটা শসা পরিমাণমতো।

প্রণালি গরুর রানের মাংস চর্বি এবং হাড় ছাড়িয়ে প্রতিটি টুকরা অন্তত ৫০০ গ্রাম হতে হচেব। ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। প্রথম ধাপের সব উপকরণ (চর্বি ছাড়া) মেখে রান্না করে নিতে হবে। এভাবে প্রতিদিন দুই বেলা করে তিন দিন জ্বাল দিতে হবে। পানি শুকিয়ে এলে মসলা থেকে মাংস তুলে নিন। অন্য ডেকচিতে চর্বি জ্বাল দিয়ে রাখতে হবে কোরবানির দিন থেকে। চর্বি গলে তেল বের হবে। আরেকটা ডেকচিতে এই তেল নিয়ে তুলে রাখা মাংস জ্বাল দিতে হবে। চর্বির তেলে যেন মাংস ডোবা থাকে। এভাবে (গরমের দিনের জন্য) প্রতিদিন বা তিন দিন জ্বাল দিয়ে এই মাংস তিন-চার মাস সংরক্ষণ করা যায়। ছেঁচা মাংস করার সময় এই মাংসের চার টুকরা নিয়ে ছোট ছোট কুচি করে আবার পাটা বা হামানদিস্তায় ছেঁচে নিতে হবে। এবার দ্বিতীয় ধাপের সব উপকরণ (লেবুর রস ছাড়া) মেখে আবার গরম করে ডিশে ঢেলে ওপরে লেবুর রস, কাঁচা পেঁয়াজ কুচি, শসা, ধনিয়াপাতা, কাঁচা মরিচ দিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ০২ আগস্ট ২০২২ /এমএম