Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::‌ আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম কমতে শুরু করায় দেশের বাজারে দুই একদিনের মধ্যে দাম কমতে পারে বলে আভাস দিয়েছেন বাণিজ্যসচিব তপন কান্তি ঘোষ।তিনি বলেছেন, আগামী দুই দিনের মধ্যে ভোজ্যতেলের দাম নিয়ে সুখবর আসতে পারে।রবিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের একথা বলেন তিনি।বাণিজ্যসচিব বলেন, এ নিয়ে হিসাবনিকাশ করা হচ্ছে। ভোজ্যতেল পরিশোধন কারখানা এবং বিপণন সংস্থাগুলোর সঙ্গে আলোচনা করে দাম নির্ধারণ করা হবে। আশা করি, ভোজ্যতেলের দাম কমবে।

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ আর্জেন্টিনা থেকে বাংলাদেশ বিপুল পরিমাণে সয়াবিন তেল আমদানি করে। এছাড়াও ইন্দোনেশিয়া থেকেও উল্লেখযোগ্য পরিমাণে সয়াবিন ও পাম তেল আমদানি করে বাংলাদেশ। মাঝে এসব দেশ সরবরাহ বন্ধ করলে ও আন্তর্জাতিক পরিবহন খরচ বাড়ায় দেশের বাজারে বাড়তে শুরু করে সয়াবিন ও পাম তেলের দাম।তবে আমদানিতে গত এক মাসে অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের দাম অনেকটাই কমেছে।

আন্তর্জাতিকভাবে দাম কমার মধ্যেই গত ৯ জুন সর্বশেষ বোতলজাত প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম সাত টাকা বাড়িয়ে ২০৫ টাকা নির্ধারণ করে ভোজ্যতেল পরিশোধন ও বাজারজাতকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ভেজিটেবল অয়েল রিফাইনার্স অ্যান্ড বনস্পতি ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যাসোসিয়েশন।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, গত বুধবার আর্জেন্টিনায় অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের টনপ্রতি দাম ছিল ১ হাজার ৪৬৪ ডলার, যা এক মাস আগে ১ হাজার ৯৭০ ডলার ছিল। তার মানে, অপরিশোধিত সয়াবিন তেলের দাম এক মাসের ব্যবধানে প্রায় ২৬ শতাংশ কমেছে। এ অবস্থায় দেশের সয়াবিনের দাম কমার আভাস দিলেন বাণিজ্যসচিব।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ২৬ জুন  ২০২২ /এমএম