Menu

প্রবাস বাংলা ভয়েস ডেস্ক ::  গত সপ্তাহের তুলনায় কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে এক ব্রয়লার মুরগির দাম। আর এক মাসে কেজিতে দাম বেড়েছে ৫০ টাকা। ব্রয়লার মুরগির মতো প্রতি সপ্তাহেই দাম বেড়ে চলেছে সোনালি মুরগির। কেজিতে বেড়েছে ১০০ টাকা পর্যন্ত। দাম বাড়তির পথে পেঁয়াজও। তবে, শেষ দফা বেড়ে অপরিবর্তিত রয়েছে ভোজ্যতেল, মাছ, চাল ও অন্যান্য মাংসের দাম। অন্যদিকে সবজির দাম কিছুটা কমেছে।শুক্রবার দিনভর রাজধানীর বিভিন্ন খুচরা বাজার ঘুরে বাজার দরের এমন চিত্র দেখা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, গত সপ্তাহের তুলনায় কেজিতে ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে। জানুয়ারির শুরুর দিকে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১১০ টাকা কেজি দরে। এক মাসের ব্যবধানে কেজিতে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে ব্রয়লারের দাম।

ব্রয়লারের পাশাপাশি বেড়ে চলেছে সোনালি মুরগি বা কক মুরগির দাম। জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে প্রতি সপ্তাহে দাম বেড়ে এ সপ্তাহে প্রতি কেজি সোনালি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৯০ থেকে ৩২০ টাকা দরে। যা জানুয়ারির শুরুতে ২০০ থেকে ২২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

মুরগির দাম বাড়লেও কমেছে মুরগির ডিমের দাম। ডজনে পাঁচ টাকা দাম কমে লাল ডিম বিক্রি হচ্ছে ৮৫ টাকায়। ২০ টাকা কমে দেশি মুরগির ডিমের ডজন বিক্রি হচ্ছে ১৮০ টাকায়। পাকিস্তানি মুরগির ডিমের ডজন ১৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর হাঁসের ডিমের ডজন ১৫০ টাকা।

অপরিবর্তিত আছে গরু ও খাসির মাংসের দাম। প্রতি কেজি গরুর মাংস ৫৫০ টাকা, মহিষের মাংস ৫৫০ থেকে ৫৮০ টাকা, খাসি ও বকরির মাংস ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কেজিতে পাঁচ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়।

দাম কমেছে সবজির

সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা দরে, ঢেঁড়স ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পাঁকা টমেটো ২০ টাকা, বরবটি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, মুলা ২০ টাকা, শালগম ২০ টাকা, গাজর ২০ থেকে ৩০ টাকা, শিম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বেগুন ২০ থেকে ৩০ টাকা দরে।

প্রতি পিস লাউ আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৪০ টাকায়, ফুলকপি ও বাঁধাকপি পিস ১৫ থেকে ২০ টাকা, মিষ্টি কুমরার কেজি ২০ থেকে ২৫ টাকা, আলু ১৮ থেকে ২০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

হালিতে পাঁচ টাকা কমে কলা বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ২০ টাকায়, কাঁচা মরিচ ৮০ থেকে ৯০ টাকা কেজি, পেঁপে ২০ থেকে ৩০ টাকা, খিরা ২৫ থেকে ৩০ টাকা, শসা ৩০ থেকে ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৮০ থেকে ৯০ টাকা, মটরশুঁটি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, চিচিঙ্গা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, লেবুর হালি ২০ থেকে ২৫ টাকা।

প্রতি কেজি আদা বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা দরে। আর রসুনের কেজি ৮০ থেকে ৯০ টাকা। এছাড়া চিনি বিক্রি হচ্ছে ৬৮ থেকে ৭০ টাকা দরে।

চালের বাজার

গত সপ্তাহে কেজি দুই থেকে পাঁচ টাকা বাড়ার পর এ সপ্তাহে স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে চালের বাজার। প্রতি কেজি মিনিকেট চাল বিক্রি হচ্ছে ৬২ থেকে ৬৫ টাকায়, বিআর-২৮ চাল ৫২ থেকে ৫৫ টাকা, নাজির ৬৫ থেকে ৬৮ টাকা, স্বর্ণা চাল ৪৬ থেকে ৪৮ টাকা, পোলাওয়ের চাল ৯০ থেকে ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মাছের বাজার

বাজারে আকারভেদে প্রতি কেজি রুই মাছ বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকা দরে। মাগুর মাছ ৬০০ টাকা, শিং মাছ ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা, মৃগেল ১১০ থেকে ১৫০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

আকার ভেদে প্রতি কেজি ইলিশ মাছ বিক্রি হচ্ছে ৮৫০ থেকে হাজার টাকা দরে, চিংড়ি মাছ ৪০০ থেকে ৬০০ টাকা, বোয়াল মাছ ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, কাতল ১৬০ থেকে ৩০০ টাকা, ফোলি মাছ ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা, পোয়া মাছ ২০০ থেকে ২৫০ টাকা, রিডা মাছ ২২০ টাকা, কোরাল ৩০০ থেকে ৫০০ টাকা, গুড়া বেলে ১২০ টাকা, রূপ চাঁদা মাছ কেজি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, পাবদা মাছ ১৫০ থেকে ২৫০ টাকা, টেংরা মাছ ১৮০ থেকে ২০০ টাকা, টাটকিনি মাছ ১০০ টাকা, তেলাপিয়া ১৪০ টাকা, সিলভার কার্প ১০০ থেকে ১৪০ টাকা, দেশি কৈ মাছ ১৫০ থেকে ৭০০ টাকা, কাঁচকি ও মলা বিক্রি হচ্ছে ২৫০ থেকে ৪৫০ টাকা, আইড় মাছ ৫০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

প্রবাস বাংলা ভয়েস/ঢাকা/ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ /এমএম